গরুর বিকল্প খাদ্য হিসেবে সরিষার গাছ

খামার ব্যবস্থাপনা গরু পালন গরু মোটাতাজাকরণ গরুর ফিড ফর্মুলেশন প্রাণিসম্পদ ফিড ফর্মুলেশন

গরুর বিকল্ল খাদ্য সরিষা গাছ (সরিষা হে) :

লেখকঃঃ জাহিদুল ইসলাম

সরিষা আমাদের দেশেই উৎপাদিত একটা তেলবীজ যা সারাদেশে শীতকালে প্রচুর চাষ করা হয়। পাকা সরিষা গাছ থেকে বীজ সংগ্রহ করার পরে আমরা সাধারণত খোসা এবং শুকনো গাছগুলো জ্বালানি হিসাবে ব্যবহার করা হয় অথবা অনেকেই ফেলে দেয়। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা বীজ সংগ্রহ করার পরে অবশিষ্ট শুকনা পুষ্টি গুনে সমৃদ্ধ সরিষা গাছ হতে পারে একটা গুরুত্বপূর্ণ বিকল্প গোখাদ্য।

খাওয়ানোর নিয়ম :
বীজ সংগ্রহ করার পরে অবশিষ্ট শুকনা গাছের গোড়ার শক্ত অংশ কেটে ফেলে দিয়ে নরম অংশ এবং খোসা সংরক্ষণ করে সারা বছর খাওয়ানো যেতে পারে। শুকনা সরিষা গাছের নরম অংশ কেটে কুচি করে গরুকে খাওয়ানো যেতে পারে। শুরুতে নতুন স্বাদের কারণে গরু খেতে না চাইলে পানি মিশায়ে নরম করে অল্প অল্প করে অভ্যাস করলে এরপর মজা করেই খাবে। শুধু সরিষা গাছ ও খোসা খেতে না চাইলে কুচি করে সামান্য চিটাগুড় মেখে নরম করে দেয়া যেতে পারে এবং ২/৩ দিনের মধ্যে অভ্যাস হয়ে যাবে।

পুষ্টি উপাদান :

শুকনো সরিষা গাছ এবং খোসায় রয়েছে ৬-৮% ক্রুড প্রোটিন, যা ধানের খড় (৪-৫%) বা ওট স্ট্র (৫-৬%) বা ভুট্টার হে’র (৫%) চেয়ে বেশি। সবচে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে সরিষা স্ট্র তে ক্যালসিয়ামের পরিমান ধানের খড়, ওট, বার্লি বা ভুট্টা স্ট্রর চেয়ে ৩ থেকে ৪ গুন বেশি। ভুট্টার হে তে ক্যালসিয়ামেরে পরিমান যেখানে ০.২৫-০.৩%, সেখানে সরিষা গাছে ক্যালসিয়ামের পরিমান ১.২-১.৪%। সরিষা স্ট্র’র টোটাল হজমযোগ্য পুষ্টি উপাদান ৫০-৫৫% ।

মাত্রা ও সাবধানতা : সরিষা গাছে সালফারের পরিমান বেশি থাকায় সারাদিনের টোটাল ড্ৰাই ম্যাটারের ৪০% অথবা লাইভ ওয়েটের ১.০-১.২৫% এর বেশি সরিষা গাছ দেয়া যাবেনা।

ধন্যবাদ।

Tagged

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *