গরুর রোগ নির্ণয়ে গোবর পর্যালোচনাঃ বিনামূল্যের ডায়াগনস্টিক সেন্টার

খামার ব্যবস্থাপনা গরু পালন গরু মোটাতাজাকরণ ডেইরি ফার্মিং প্রাণিসম্পদ

আমরা গরুকে প্রতি দিনই বিভিন্ন ধরেনর খাবার প্রদান করছি, কিন্তু সেই খাবার সঠিক ভাবে হজম হচ্ছে কিনা, এতে পেটে সমস্যা হচ্ছে কিনা, এসিডিটি তৈরি হচ্ছে কিনা তা জানিনা। আবার গোবর একটু পাতলা হলেই মহাচিন্তায় পড়ে যাই এবং সমস্যার প্রাকৃতিক কি সমাধান হতে পারে তা জানা না থাকায় বিষয়টি জটিল আকার ধারণ করে এবং বাধ্য হয়েই ঔষধের সরনাপন্ন হই। এতে করে গরুর গ্রুথ কমে যাওয়া সহ নানা ধরণের সমস্যা দেখা দেয়। গরু যেহেতু আমাদের কে তার সমস্যার কথা বলতে পারছে না তাই আমাদেরই জেনে নিতে হবে গরুর কোন সমস্যা হচ্ছে কিনা। আর এই বিষয়টি জানার সবচেয়ে সহজ উপায় হল গোবর পর্যালোচনা। কারণ গোবর গরুর পেট অর্থাৎ রুমেন ও রেটিকুলাম, বৃহদ্রান্তের অবস্থা জানান দেয়।

একটি প্রাপ্ত বয়স্ক সুস্থ গরু প্রতি ১.৫-২ ঘন্টা পরপর পায়খানা করে এবং ৪০ কেজির মত প্রসাব ও পায়খানা করে। ইহা খাবারের মান, ধরণ ও পানির উপর নির্ভর করে কম বেশি হতে পারে। গোবর দেখে গরুর পেটের হজম ক্রিয়া ও গাঁজন উভয় অনুমান ও পর্যালোচনা করা যায়।

গোবর পর্যালোচনা করার জন্য ‘The Three C’s of Manure Observations’ একটা টার্ম আছে তা হল “Color, Consistency, Content”

নিন্মে তা সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হলঃ

Color (রং)-

গোবরের রং গরুকে প্রদেয় খাদ্য, খাদ্যের ধরন অর্থাৎ TMR এর উপর নির্ভর করে।
১. গরুকে কাঁচা ঘাসের দিলে গোবরের রং হবে ডার্ক গ্রীন।
২. খড় দিলে ডার্ক গ্রীন থেকে বাদামী-সবুজ।
৩. অধিক পরিমাণে দানাদার খাবার ও সবুজ ঘাস দিলে গোবর হবে হলুদাভ সবুজ।
৪. গরুর ডাইরিয়া ভাব দেখা দিলে গোবরের রং হবে ধূসর।
৫. গরুকে ঔষধ খাওয়ালে স্বাভাবিক রং পরিবর্তন হয়ে যাবে তবে তা কেমন হবে তা ঔষধের ধরনের উপর নির্ভর করবে।
৬. গরুর গোবর কালো বা রক্ত ও মিউকাস যুক্ত হবে যদি গরু পানি বাহিত আমাশয়, রক্ত আমাশয় ও ব্যকটেরিয়া জনিত কারণে মাইকোটক্সিন তৈরি হয়।
৭. হালকা সবুজ বা হলুদাভ হবে সাথে ডাইরিয়া লক্ষণ দেখা দিলে বুঝতে হবে ব্যাকটেরিয়া জনিত কারণে পাতলা পায়খানা হচ্ছে।

Consistency (ঘনত্ব)-

গরুর গোবরের ঘনত্বের উপর নির্ভর করে গরুকে প্রদেয় খাবারের অনুপাতের উপর। খাদ্য উপাদান গুলো কম বা বেশি হলে পায়খানা নরম বা শক্ত হয়ে যায়। বিষয়টি ১-৫ স্কোরিং পদ্ধতিতে বর্ণনা করা হল।

গোবর পর্যালোচনা স্কোরিং-
একজন ফার্মার গরুর গোবর পর্যালোচনা করে বুঝতে পারবে তার গরু কে গত তিনদিন যে খাবার দেওয়া হয়েছে তার পুুষ্টিগুন কেমন ছিল। গোবর পর্যালোচনা করার জন্য ১-৫ পর্যন্ত স্কোরিং করা হয়।
ক. #স্কোর – ১: স্কোর ১ হল এমন ধরণের পায়খানা যা তরল সোপের মত যেখানে পানির পরিমাণই বেশি। এই জাতীয় পায়খানা পরে চারদিকে ছড়িয়ে যাবে। এই জাতীয় পায়খানা শুধু মাত্র অসুস্থ অথবা অতিরিক্ত ডাইজেস্টেবল রেশন যেখানে প্রোটিন, কার্ব ও মিনারেলের পরিমাণ অনেক বেশি ও কার্যকর আঁশের (NDF) পরিমাণ খুবই কম। এ ক্ষেত্রে রেশনে আঁশের পরিমাণ যুক্ত করতে হবে এবং TDN কমাতে হবে। কয়েক দিন ধরে এ রকম হলে প্রয়োজনে চিকিৎসা করতে হবে।

খ. #স্কোর ২: এই ধরনের পায়খানা মাটি বা ফ্লোরে পরার পর ১” এর কম উচ্চতা হবে। পায়াখানা একটু পাতলা হবে কিন্তু বেশি দূর ছড়াবে না। গোবরের মধ্যবর্তী স্থানে গর্ত হয়ে যাবে। প্রোটিন, কার্ব ও মিনারেলের পরিমাণ অনেক বেশি ও কার্যকর আঁশের (NDF) পরিমাণ হলে এমন হয়। এ ক্ষেত্রে ভাল মানে প্রয়োজন মত আঁশ জাতীয় খাবার যুক্ত করতে হবে।

গ. #স্কোর ৩: স্কোর ৩ হল নরমাল ও উত্তম গোবর। এ জাতীয় পায়খানা মাটিতে পড়ে ছড়ায় না। পুরুত্ব ১.৫” এর কম। গোবরের মধ্যবর্তী স্থানে হালকা একটু গর্ত হবে। ঘনত্ব হবে শেভিং ক্রিমের মত কিন্তু গোবর স্ট্যাক আকারের হবে না। গোবর এ রকম হলে বুঝতে হবে রেশনে প্রোটিন, কার্ব ও আঁশ সুষম ভাবে আছে। চিত্রঃ ৩।

ঘ. #স্কোর ৪: এ ধরনের গোবর কিছুটা শক্ত হয় এবং একটু উচু (১.৫” এর উপরে) হয়।গোবরের মধ্যবর্তী স্থান টাও একটু উচু থাকবে। এ জাতীয় গোবর জানান দেয় যে রেশনে পর্যাপ্ত প্রোটিন ও কার্বের ঘাটতি আছে এবং প্রয়োজনের অতিরিক্ত আঁশ আছে। চিত্রঃ ৪

ঙ. #স্কোর ৫: স্কোর ৫ এর গোবর সবচেয়ে শক্ত, শুষ্ক ও স্ট্যাক ২” এর উপরে। রেশনে অতি মাত্রায় প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেট এর ঘাটতির কারণে গোবর এমন হয়। তাছাড়া নিন্ম মানের আঁশ (ADF) বেশি থাকলে গোবর এমন শুষ্ক ও শক্ত হয়।

Content (গোবরে খাবার):

যদি আপনি গোবরে খাবারের দানা দেখেন বা ০.৫” বেশি লম্বা ঘাস ও খড় দেখেন তাহলে বুঝতে হবে খাবার গুলো রুমেনে ফার্মেন্টেশন কম হয়ে বৃহদ্রান্তে ফার্মেনটেশন হচ্ছে। খাবার রুমেনে হজম হয় এবং বৃহদান্তে সকল পুষ্টি, ভিটামিন ও মিনারেল শোষন হয়। কিন্তু খাবার রুমেনে হজম না হয়ে বৃহদান্তে হজম হলে সকল পুষ্টি, ভিটামিন ও মিনারেল শোষন খুবই কম হয় এবং বাকি অংশ পায়খানার সাথে বেরিয়ে যায়। পায়খানার সাথে দানাদার খাবার বেরিয়ে যাওয়ার অর্থ হল রেশনে পর্যাপ্ত পরিমানে কার্যকরী আঁশ (NDF) কম থাকা যা ফার্মেন্টেশানে সহায়তা করে এবং ph নিয়ন্ত্রন করে।
কিন্তু আপনি যদি দানাদার খাবার পাউডার করে খাওয়ান তাহলে আপনারর পক্ষে এই বিষয়টি লক্ষ্য করা খুবই কঠিন, তবে খুব তীক্ষ্ণ ভাবে অবজার্ভ করলে হালকা হলুদ রং এর পাউডার দেখা যাবে। এর চেয়ে আরেকটু সহজ ব্যবস্থা হল গোবর শুকানোর পর লক্ষ্য করলে ধূসর-সাদা রংএর কার্ব দেখা যাবে।
অতিরিক্ত মিউকাসের উপস্থিতি মানে হল পাকস্থলীতে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমনের কারণে কোন প্রকার ইনফেকশান হওয়া।

যে কারণে পায়খানা পাতলা হয়ঃ

১. রোশনে অতিরিক্ত রুমেন ডিগ্রেডেড প্রোটিন থাকলে,
২. অতিরিক্ত মিনারেল থাকলে,
৩. অতিরিক্ত কার্বের কারণে এসিডিটি তৈরি হলে,
৪. প্রয়োজনীয় কার্যকর আঁশ না থাকা,
৫. কৃমি দ্বারা আক্রান্ত থাকা,
৬. পয়জনাস খাবার প্রদান করা,
৭. পানি বাহিত ব্যকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হওয়া।
৮. গোবর ফোমি ও বুদবুদ হবে যদি তা রুমেনে হজম না জয় এবং ph কম থাকে।

ভাল গোবর দেখতে কেমন?

১. হাই প্রোডিউসিং গরুর গোবর হবে শেভিং ক্রিমের মত নরম।
২. গোবরে ৩-৬ টি হাল্কা রিং তৈরি হবে এবং উচ্চতা হবে সর্বোচ্চ ১.৫”
৩. গোবরের মধ্যবর্তী স্থানে হালকা গর্ত হবে।
৪. গোবরে অল্প পরিমানে ০.৬৪ সেঃমিঃ দৈর্ঘ্যের আঁশ বা ছোট দানা দেখা যাবে।

রুমেনে এসিডিটি কি করে বুঝবেন?

১. রুমেনে এসিডিটি তৈরি হলে পায়খানা পাতলা হবে,
২. ছোট ছোট বুদ বুদ দেখা যাবে,
৩. মসৃন ও কিছুটা চকচকে হবে,
৪. পায়খানায় বেশি মাত্রায় আঁশ থাকাও এসিডিটির একটি লক্ষন,
৫. পায়খানা মিউকাস যুক্ত হবে।
৬. ফার্মে এসিডিটি সমস্যা দেখা দিলে কিছু গরুর পায়খানা পাতলা, কিছু গরুর পায়খানা সঠিক এবং কিছু গরুর কঠিন পায়খানাও হতে পারে। গোবর ফোমি ও বুদবুদ হবে যদি তা রুমেনে হজম না জয় এবং ph কম থাকে।

মতামতঃ

১. ফার্মের যেকোন একটি গরুর পাতলা পায়খানা হলেই সতর্ক হতে হবে এবং এর কারণ খুঁজে বাহির করতে হবে।
২. একই ফার্মের, একই রেশনে বিভিন্ন গরুর পায়খানা ভিন্ন রকম হলেই বুঝতে হবে কোথাও কোন সমস্যা আছে।
৩. পায়খানা পাতলা হলে কার্যকরী আঁশযুক্ত খাবার বাড়াতে হবে এবং DIP ও কার্ব কমাতে হবে। স্যালাইন খাওয়াতে হবে।
৪. পায়খানা শক্ত হলে আঁশ কমাতে হবে এবং DIP ও কার্ব বাড়াতে হবে।
৫. পাতলা পায়খানা বেশি হলে কার্ব জাতীয় খাবার সর্ব নিন্ম দিয়ে আঁশ বেশি দিতে জবে। পাশাপাশি চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।
৬. পায়খানায় বুদবুদ ও হালকা মিউকাস দেখা দিলে স্টার্চ কমাতে হবে, অ্যানায়নিক মিনারেল বন্ধ করতে হবে, ক্যাটায়নিক মিনারেল বৃদ্ধি করতে হবে। সহজ ব্যবস্থা হল ৫০ গ্রাম করে খাবার সোডা দিতে হবে যত দিন পর্যন্ত ভাল না হয় অথবা চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।
৭. অতিরিক্ত মিউকাস ও রক্ত চিকিৎসকের সরনাপন্ন হতে হবে।
৮. সর্ব সেরা মতামত, গরুর স্বাস্থ্য ভাল রাখতে চাইলে গরুকে সব সময় কৃমি মুক্ত রাখতে হবে।

তথ্য সূত্রঃ

১. Agricultural Safety and Health, Animal Science Academic Department © 2016 Penn State College of Agricultural Sciences।

২. Andy Skidmore, Michigan State University as cited by M. Hutjens, 1996

৩. U. S. Dairy Forage Research Center USDA – Agricultural Research Service Madison, WI

৪. Hall, M.B. 2002. Characteristics of manure: what do they mean? Proceedings of the Tri-State Nutrition Conference.

৫. “Fine tune rations and feeding management to increase profitability.” – 2005; Dairy Extension: University of Minnesota..

Tagged

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *