প্রাণিসম্পদে এন্টিবায়োটিকের যথেচ্ছা ব্যবহার ও অসহায় পৃথিবী

অন্যান্য কবুতর পালন কোয়েল পালন খরগোশ পালন গরু মোটাতাজাকরণ গাড়ল পালন ছাগল পালন টার্কি পালন ডেইরি ফার্মিং তিতির পালন দেশি মুরগি পালন প্রাণিসম্পদ ব্রয়লার মুরগি পালন মুরগি পালন মেডিসিন পরিচিতি রোগ ও প্রতিরোধ লেয়ার মুরগি পালন সোনালি মুরগি পালন হাঁস পালন

এন্টিবায়োটিক ব্যবহারে সতর্ক হোন

খামারের প্রাণীতে এন্টিবায়োটিকের যথেচ্ছা ব্যবহার ও অপব্যবহারের কারনে আজ অধিকাংশ এন্টিবায়োটিক আর কাজ করছে না।জীবাণুগুলা হয়ে যাচ্ছে এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স।

এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স হচ্ছে জীবাণুর বিরুদ্ধে এন্টিবায়োটিকের কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে যাওয়া। যা খুবই ক্ষতিকর। এই ক্ষেত্রে প্রাণীকে ঔষধ খাওয়ালেও ভালো ফল পাওয়া যায় না, কারন জীবাণুর বিপক্ষে এন্টিবায়োটিক আর কাজ করতে পারেনা।

কারণে-অকারণে,বিনা কারণে ইচ্ছামত না জেনে-শুনে এন্টিবায়োটিক যথেচ্ছা ব্যবহারের কারনেই এই সমস্যা দেখা দিয়েছে।

শুধু প্রাণীতেই নয়;আমাদের মানুষের ক্ষেত্রে ও এই একই সমস্যা।সামান্য সর্দি-কাশিতে আমরা এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করি।এটা ঠিক নয়।

কিভাবে এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স হয়?

ধরুন পাখি অসুস্থ হওয়ার কারণে আপনি এন্টিবায়োটিক দিলেন।কিন্তু ১ বা ২ দিন খাওয়ানোর পরে পাখি সুস্থ হয়ে গেল আর আপনি এন্টিবায়োটিক বন্ধ করে দিলেন।আর তখনই ঘটল বিপত্তি।

ধরুন পাখির শরীরে যে পরিমাণ জীবাণু ছিল সেগুলা মেরে ফেলতে যে পরিমাণ এন্টিবায়োটিক দরকার ছিল তা ৫ বা ৭ দিনের নির্দিষ্ট ডোজ লাগবে।কিন্তু একদিন বা দুই দিন দেয়ার পরে পাখি যখন সুস্থ হল তখন আপনি এন্টিবায়োটিক দেয়া বন্ধ করায় শরীরে যে পরিমাণ জীবাণু ছিল তা সম্পুর্ণ ধ্বংস হল না। কিছু জীবাণু শরীরে থেকে গেল। তখন এই জীবানু গুলোর এমন একটা ক্ষমতা আছে যার কারনে সে নিজেকে জেনেটিক্যালি পরিবর্তন করে ফেলে এবং তার বিরুদ্ধে  ব্যবহৃত ওই এন্টিবায়োটিকের বিপরীতে একটা কোড তৈরি করে ফেলে। যার কারনে ওই এন্টিবায়োটিক আর কখনো তার শরীরে কাজ করবে না।এভাবে অধিকাংশ এন্টিবায়োটিক আর কাজ করে না।ফলে পাখি অসুস্থ হলেও এন্টিবায়োটিক দিলেও তা কাজ না করায় প্রাণিকুল আজ হুমকির মুখে।শুধু প্রাণি নয় আমাদের মানুষের ক্ষেত্রেও একই সমস্যা দেখা দিয়েছে।

এজন্য নিজের ইচ্ছামত এন্টিবায়োটিক ব্যবহার না করে অবশ্যই একজন ভেটেরিনারি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করুন।

Tagged

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *