বারোমাসী বেগুন চাষের বিস্তারিত

আধুনিক কৃষি কৃষি প্রযুক্তি ছাদ কৃষি মাঠ ফসল

লাভজনক একটি চাষ হলো বারোমাসি বেগুন চাষ


বেগুনের জাতঃ

বারোমাসির মধ্যে সেরা জাত হলো “ পার্পল কিং”


রোপণের সময়ঃ

আষাঢ় শ্রাবণ মাস বাদে বছরের যেকোন সময় ই চারা রোপন করা যায়। তবে বেশী শীতের সময় চারা রোপন না করাই উত্তম কারণ শীত বেশী হলে গাছের গ্রোথ কম হয়।

রোপণ পদ্ধতিঃ


প্রথমেই মাটি ভালকরে চাষ দিয়ে ডলোচন দিয়ে কিছুদিন রেখে পর্যাপ্ত পরিমাণ গোবর সার দিয়ে।  আবার চাষ দিয়ে বেড করে নিতে হবে। বেড করার ৫/৬ দিন পরে বেডে ঘাস হলে নিরানি দিয়ে চারা রোপন করতে হবে।

বারোমাসী বেগুন চাষ

আর অনেকেই চারার দুরুত্ব নিয়ে অনেক কথা বলে আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলি চারার দুরুত্ব ৫০ ইঞ্চি থেকে ৫৬ ইঞ্চি রাখা প্রয়োজন কারণ ভাল করে গাছকে সেবা দিলে গাছ অনেক বড় হয়। গাছ রোপনের পরে নিয়মিত সেচ দিতে হবে যাতে গাছগুলো সঠিকভাবে গ্রোথ বাড়তে পারে। চারা বড় হওয়ার সাথে সাথে নিয়মিত কীটনাশক স্পে করতে হবে কারণ বেগুনের প্রধান শত্রু হলো ডগা ছিদ্রকারী পোকা আমি এমিনেন্স কোম্পানির স্নাইপার আর সালভো দুইটা কীটনাশক ব্যবহার করেছি আলহামদুলিল্লাহ ৬ মাসে ও একটি বেগুনেও পোকামাকড় এ আক্রমণ করে নাই সাথে অব্যশই ফেরমোন ফাদ ব্যবহার করতে হবে। নিয়মিত সেচ,কীটনাশক স্পে ও খাদ্য দিতে পারলে বারোমাস একি হারে বেগুন সংগ্রহ করতে পারবেন।


বিশেষ অনুরোধ : চারা নিজে করাই উত্তম আর না হয় পরিচিত কোন নার্সারী থেকে।
ছবিগুলো আমার নিজে প্রজেক্ট এর

লিখেছেনঃ M Wazed Ali

Tagged

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *